ঢাকা মঙ্গলবার, জুলাই ২৩, ২০২৪
পাংশায় উপজেলার টেলিফোন এক্সচেঞ্জ ব্যবস্থাপনায় হ-য-ব-র-ল অবস্থা॥২শতাধিক গ্রাহক সেবা বঞ্চিত
  • মোক্তার হোসেন
  • ২০২০-০৯-০৭ ১৪:৫১:০৬
পাংশার বিটিসিএল’র টেলিফোন এক্সচেঞ্জ ভবন -মাতৃকণ্ঠ।

রাজবাড়ী জেলার পাংশা উপজেলায় বিটিসিএল’র টেলিফোন এক্সচেঞ্জ ব্যবস্থাপনায় হ-য-ব-র-ল অবস্থা বিরাজ করছে। দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে ঢিমেতালে চলছে জনগুরুত্বপূর্ণ এ টেলিফোন এক্সচেঞ্জটি। ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন সরকারী ও বেসরকারী পর্যায়ের গ্রাহকগণ। ২৬০টি টেলিফোন লাইনের মধ্যে বর্তমানে ৪০/৪৫টি লাইন সচল রয়েছে। সচল লাইনও মাঝে-মাঝে বিকল হয়ে পড়ে।
  জানা যায়, পাংশার বিটিসিএল’র টেলিফোন এক্সচেঞ্জের আওতায় সরকারী ও বেসরকারী অফিস, বিশিষ্ট ব্যক্তি ও ব্যবসায়ীদের মধ্যে ২৬০ জন গ্রাহক রয়েছেন। ২৬০টি লাইনের মধ্যে মাত্র ৪০/৪৫টি লাইন সচল রয়েছে। দুই শতাধিক টেলিফোন লাইন বিকল রয়েছে। সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন গ্রাহকরা। টিএন্ডটি লাইন বিকল থাকায় সরকারী অফিসের কর্মকর্তাগণ বিব্রত হচ্ছেন। ব্যক্তিগত মোবাইল ফোন দিয়ে সরকারী পর্যায়ের কাজ করতে হচ্ছে তাদের। বিশিষ্ট ব্যক্তি এবং ব্যবসায়ী পর্যায়ের গ্রাহকগণও টিএন্ডটি লাইন বিকল থাকায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন।
  জানা যায়, পাংশার বিটিসিএল’র টেলিফোন এক্সচেঞ্জ অফিসে ৩জন লাইনম্যান কর্মরত রয়েছেন। মাদারবোর্ডের কার্ড ও ক্যাবল ত্রুটির কথা বলে দিনের পর দিন সময় পার করছেন লাইনম্যানরা। গ্রাহকদের লাইন চার্জ বিল জমা দেওয়াই যেন তাদের একমাত্র কাজ হয়ে দাঁড়িয়েছে। গ্রাহক সেবা না পেয়েও লাইন চার্জ বিল পরিশোধ করতে বাধ্য হচ্ছেন অনেক গ্রাহক।
  এদিকে গতকাল ৭ই সেপ্টেম্বর সকালে সরেজমিন পাংশার বিটিসিএল’র টেলিফোন এক্সচেঞ্জ কর্তৃপক্ষের সাথে কথা হলে নাম প্রকাশ না করার শর্তে জনৈক লাইনম্যান জানান, মাদার বোর্ডের কার্ড ও ক্যাবল সমস্যার কথা রাজবাড়ীর উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে মৌখিক ভাবে জানানো হয়েছে। মাদার বোর্ড ও লাইনের ক্যাবল ঠিক করা না হলে চলমান বিপর্যস্ত অবস্থা থেকে গ্রাহক সেবা অনিশ্চিত বলে জানান তারা।

 

রাজবাড়ীতে শিল্প বাণিজ্য মেলা শেষে ক্ষতবিক্ষত খেলার মাঠ!
ড্রেনের ৭০ শতাংশ কাজ না করেই ৭৭.৫ শতাংশ অর্থ উত্তোলন করেছে ঠিকাদার!
 ফরিদপুরে পদ্মা ও আড়িয়াল খাঁ নদীর ভাঙন॥আতঙ্কে স্থানীয়রা
সর্বশেষ সংবাদ