ঢাকা শুক্রবার, জুন ২১, ২০২৪
মাতৃকণ্ঠে সংবাদ প্রকাশের পর বসন্তপুরে প্রতিবন্ধী কিশোরী ধর্ষণের ঘটনায় মামলা॥দুইজন গ্রেফতার
  • আশিকুর রহমান
  • ২০২৩-০৫-২৪ ০৩:২০:৪৭

রাজবাড়ী সদর উপজেলার বসন্তপুরে প্রতিবন্ধী কিশোরীকে (১৪) ধর্ষণ ও ১৫ হাজার টাকায় মীমাংসা করার ঘটনায় দৈনিক মাতৃকণ্ঠে প্রকাশের পর অভিযুক্ত লিটন শেখ (৩০) ও মীমাংসাকারী মাতুব্বর হক মোল্লা (৫০)কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। 

গত ২২শে মে দিবাগত রাত ২টার দিকে সদর উপজেলার বসন্তপুর ইউনিয়নের বড় রঘুনাথপুর গ্রাম থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। 

এর আগে রাত সোয়া ১২টার দিকে লিটন শেখ ও হক মোল্লাকে আসামী করে রাজবাড়ী সদর থানায় মামলা দায়ের করেন ভুক্তভোগী কিশোরীর বাবা।

গ্রেফতারকৃত লিটন শেখ বসন্তপুর ইউনিয়নের বড় রঘুনাথপুর গ্রাামের ছলেমান শেখের ছেলে ও হক মোল্লা একই গ্রামের মৃত আফছার উদ্দিন মোল্লার ছেলে।

গত ২২শে মে দৈনিক মাতৃকণ্ঠে 'বসন্তপুরে প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণ, ১৫ হাজার টাকায় মীমাংসা' শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ হয়।

সংবাদটি রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার এমএম শাকিলুজ্জামানের দৃষ্টিগোচর হলে তিনি রাজবাড়ী সদর থানার ওসিকে ঘটনাটি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেন। এ নির্দেশের পর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মোঃ কামরুজ্জামান শিকদার ভুক্তভোগী কিশোরীকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন।

এসআই কামরুজ্জামান শিকদার জানান, পুলিশ সুপার স্যারের নির্দেশে ২২শে মে দুপুরে ভুক্তভোগী কিশোরীকে উদ্ধার করে থানায় আনা হয়। সেখানে নারী পুলিশ সদস্য দিয়ে কিশোরীকে জিজ্ঞাসাবাদ করালে তার বর্ণনায় ধর্ষণের সত্যতা পাওয়া যায়। পরে রাত সোয়া ১২টার দিকে ওই কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে অভিযুক্ত লিটন শেখ ও ঘটনা মীমাংসা করে ধামাচাপা দেয়া ব্যক্তি হক মোল্লাকে আসামী করে থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলার পর বড় রঘুনাথপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে রাত ২ টার দিকে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা (আইও) এসআই কামরুজ্জামান শিকদার আরও জানান, রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে ভুক্তভোগী কিশোরীর ডাক্তারী পরীক্ষা সম্পন্ন করা হয়েছে। সে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ২২ ধারায় আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে। গ্রেফতার দুই আসামীকে আদালতে  প্রেরণ করা হয়েছে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ছোটবেলা থেকেই রাজবাড়ী সদর উপজেলা বসন্তপুর ইউনিয়নের বড় রঘুনাথপুর গ্রামে নানাবাড়ীতে থাকতো শারীরিক প্রতিবন্ধী ওই কিশোরী। সে কিছুটা বুদ্ধি প্রতিবন্ধীও। গত ১লা মে দুপুর ১২টার দিকে লিটনের দোকানে আরসি (কোমল পানীয়) আনতে যায় ওই কিশোরী। এসময় একা পেয়ে লিটন তাকে হাত ধরে টেনে দোকানের পেছনে নিজের ঘরে নিয়ে মুখ চেপে ধরে ধর্ষণ করে। এরপর সে বাড়ীতে এসে ঘটনাটি তার নানীকে জানায়। তার নানী ঘটনাটি গ্রামের মাতুব্বর রহমান খাঁ ও হক মোল্লাকে জানান। রহমান খাঁ বিষয়টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যানকে জানানোর পরামর্শ দেন। কিন্তু, হক মোল্লা বিষয়টি নিজে মীমাংসা করে দিবেন বলে জানান। পরে হক মোল্লা লিটনের কাছ থেকে ১৫ হাজার টাকা নিয়ে ভুক্তভোগীর পরিবারকে দিয়ে ধর্ষণের ঘটনাটি ধামাচাপা দেন।

রাজবাড়ীতে তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন বিষয়ক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত
খানখানাপুরে বড় ব্রিজে দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে ২০ যাত্রী আহত
রাজা সূর্য কুমার ইনস্টিটিউশনের উদ্যোগে প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীদের মিলন মেলা অনুষ্ঠিত
সর্বশেষ সংবাদ