ঢাকা মঙ্গলবার, মার্চ ৫, ২০২৪
শেখ রাসেল দিবস উপলক্ষ্যে জেলা প্রশাসকের বাণী
  • আবু কায়সার খান
  • ২০২৩-১০-১৮ ০০:৩৩:৫০

স্বাধীনতার মহান স্থপতি সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিবের কনিষ্ঠ সন্তান শেখ রাসেল-এর ৬০তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে তাঁকে গভীর ভালোবাসা ও পরম মমতায় স্মরণ করছি এবং তাঁর আত্মারমাগফেরাত কামনা করছি।
শেখ রাসেল ১৯৬৪ সালের ১৮ অক্টোবর জন্ম গ্রহণ করেন। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অত্যন্ত প্রিয় লেখক ছিলেন নোবেল জয়ী লেখক-দার্শনিক বার্ট্রান্ড রাসেল। তাই বঙ্গবন্ধু আর বঙ্গমাতা দু’জনে মিলে তাঁদের আদরের ছোট ছেলের নাম রেখে ছিলেন ‘রাসেল’। রাসেল নামটি শুনলেই প্রথমে যে ছবিটি সামনে আসে তা হলো- হাস্যোজ্জ্বল, প্রাণচঞ্চল এক ছোট্ট শিশুর দুরন্ত শৈশব; যে শিশুর চোখগুলো হাসি-আনন্দে ভরপুর, যে মুখাবয়ব ভালোবাসা ও মায়ায়মাখা।
কোমলমতি শিশু রাসেলকে আমরা হারিয়েছি ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের নির্মম ও বিভীষিকাময় রাতে। স্বাধীনতা বিরোধী, ষড়যন্ত্রকারী ও বিশ্বাস ঘাতকদের হাতে স্বাধীন বাংলাদেশের মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ তাঁরপরিবারের ১৮ জন সদস্য শহিদ হন ঐ কাল রাতে। সেদিন ছোট্ট শিশু রাসেলও খুনিদের হাত থেকে রেহাই পায়নি। বাঁচার জন্য ঘাতকদের কাছে আকুতি জানিয়ে ছিল, মায়ের কাছে যেতে চেয়েছিল। মায়ের কাছে নিয়ে যাওয়ার মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে ঘাতকরা তাঁকে নির্মমভাবে হত্যা করেছে।
শেখ রাসেল আজ আমাদের মাঝে নেই, কিন্তু আছে তাঁর পবিত্র স্মৃতি। আজকের শিশুরাই বিনির্মাণ করবে আগামীর স্মার্ট বাংলাদেশ। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা হোক শিশুদের জন্য নিরাপদ।
জয় বাংলা।
বাংলাদেশ চিরজীবী হোক।
(আবু কায়সার খান)
জেলা প্রশাসক
রাজবাড়ী।

রাজবাড়ী শহরের ডাঃ রতন ক্লিনিকে ফের ভুল চিকিৎসায় সিজারিয়ান নারীর মৃত্যু
শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে রাজবাড়ী জেলা প্রশাসকের বাণী
মহান বিজয় দিবসে জেলা প্রশাসকের বাণী
সর্বশেষ সংবাদ