ঢাকা মঙ্গলবার, মার্চ ৫, ২০২৪
বেগম রোকেয়া দিবসে রাজবাড়ীতে শ্রেষ্ঠ ৮ জয়িতাকে সংবর্ধনা প্রদান
  • মীর সামসুজ্জামান
  • ২০২৩-১২-০৯ ১৪:৩৫:৪৮

 আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও বেগম রোকেয়া দিবস উপলক্ষে ‘জয়িতা অন্বেষণে বাংলাদেশ’ শীর্ষক কার্যক্রমের আওতায় গতকাল ৯ই ডিসেম্বর সকালে রাজবাড়ী জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসন ও মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের আয়োজনে আলোচনা সভা ও শ্রেষ্ঠ ৮জন জয়িতাকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে।

 প্রধান অতিথি হিসেবে জেলার ৮জন শ্রেষ্ঠ জয়িতার হাতে সম্মাননা সনদ, ক্রেস্ট তুলে দেন রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক আবু কায়সার খান। 

 রাজবাড়ীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(সার্বিক) সুবর্ণা রাণী সাহার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে পুলিশ সুপার জি এম আবুল কালাম আজাদ ও ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ আব্দুর রহমান বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে স্বাগত রাজবাড়ী জেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মোঃ আজমীর হোসেন বক্তব্য রাখেন।

 অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে রাজবাড়ী রাস এনজিও নির্বাহী পরিচালক মোঃ লূৎফর রহমান লাবু, মীর মাহফুজা আক্তার মলি ও নির্বাচিত জয়িতারা বক্তব্য রাখেন। 

 অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার জি এম আবুল কালাম আজাদ বলেন, নারীরা সমাজের বোঝা নয়। পুরুষের পাশাপাশি আজ অর্থনীতিতে বাংলাদেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে নারীরাই। আর এটা সম্ভব হয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্বের কারণে। নারীরা এক সময়ে নিজেদেরকে দুর্বল মনে করতো। ঘর ছেড়ে বাইরে আসতে চাইতো না লোকে খারাপ বলবে বলে। সেই জায়গা থেকে নারীদের সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে এসেছেন নারী জাগরণের অগ্রদূত বেগম রোকেয়া সাখাওয়াত হোসেন। তিনিই বাঙালি নারী জাগরণের একমাত্র পথিকৃত। নারী-পুরুষ একত্রে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করলে দেশ অনেক এগিয়ে যাবে বলে তিনি জানান।

 প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক আবু কায়সার খান বলেন, বেগম রোকেয়া ছিলেন দূূরদৃষ্টি সম্পন্ন একজন আধুনিক নারী। তিনি উপলব্ধি করেছিলেন সমাজ তথা রাষ্ট্রের সার্বিক উন্নয়নের জন্য পুরুষের পাশাপাশি নারীকে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার মাধ্যমে উপযুক্ত করে গড়ে তোলা একান্ত প্রয়োজন। তার এই উপলব্ধি ও আদর্শ আজও আমাদের অনুপ্রেরণা জোগায়।

 তিনি আরো বলেন, শিক্ষার অধিকার বঞ্চিত নারীদের শিক্ষার জন্য তিনিই সর্ব প্রথম সচেতন করে তুলেছিলেন। তার জন্যই আজ নারী সমাজ শিক্ষাসহ সবক্ষেত্রে সুযোগ-সুবিধা পাচ্ছে। রোকেয়ার আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে শিক্ষা-দীক্ষায় আলোকিত হয়ে দেশ গড়ার কাজে আজকের নারীদের অবদান রাখার আহবান জানান তিনি।

 আলোচনা সভা শেষে রাজবাড়ী জেলা পর্যায়ে অর্থনীতিতে সাফল্য অর্জনের জন্য লাইলা পারভীন খান(রাজবাড়ী সদর), শিক্ষা ও চাকরি ক্ষেত্রে বিথী সেন(বালিয়াকান্দি), সমাজ উন্নয়ন ক্ষেত্রে মিসেস সাহানা বেগম, সফল জননী ক্ষেত্রে তরুলতা বিশ্বাস(বালিয়াকান্দি) ও নির্যাতনের বিভীষিকা মুছে নতুন উদ্যমে জীবন শুরু ক্ষেত্রে মোছাঃ আসমা বেগম (কালুখালী) ও রাজবাড়ী সদর উপজেলা পর্যায়ে শিক্ষা ও চাকরী ক্ষেত্রে তাহমিনা পারভীন, সফল জননী ক্ষেত্রে নাছিমা আখতার, নির্যাতনের বিভীষিকা হতে উত্তরণ ক্ষেত্রে জাহানারা বেগমকে ক্রেস্ট, সনদপত্র প্রদান এবং উত্তরীয় পরিয়ে দেন অতিথিরা।

 

 রাজবাড়ী সদর উপজেলার নতুন ইউএনও রবিউল আলমের দায়িত্ব গ্রহণ
কালুখালীর লাড়িবাড়ীতে দুর্বৃত্তদের হামলায় আহত মঙ্গল বিশ্বাস মৃত্যু
রাজবাড়ীতে দৈনিক সময়ের আলোর ৫ম বর্ষপূর্তি পালন
সর্বশেষ সংবাদ