ঢাকা মঙ্গলবার, মে ২৮, ২০২৪
ঈদের নামাজ আদায় করবেন যেভাবে
  • ষ্টাফ রিপোর্টার
  • ২০২৪-০৪-১০ ১৮:০৩:৪৮

মাসব্যাপী সংযমের অনুশীলনের পর আল্লাহ তাআলার পুরস্কার হিসেবে ঈদ উদ্‌যাপিত হয়। ঈদ কেবল আনন্দ-উৎসবই নয়, বরং তা মহান আল্লাহর আনুগত্যে শুদ্ধতা-শূচিতা চর্চার অনন্য উদ্‌যাপন। ঈদের দিনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ইবাদত হলো ঈদের নামাজ। ঈদের নামাজের নিয়মকানুন এখানে তুলে ধরা হলো—

 

ঈদের নামাজ আদায় করা ওয়াজিব। আজান-ইকামত ছাড়া দুই রাকাত নামাজ আদায় করতে হয়। যাদের জন্য জুমার নামাজ ওয়াজিব, তাদের জন্য ঈদের নামাজও ওয়াজিব। ঈদের নামাজ ময়দানে পড়া উত্তম। তবে মক্কাবাসীর জন্য মসজিদে হারামে উত্তম। শহরের মসজিদগুলোতেও ঈদের নামাজ জায়েজ আছে। (বুখারি: ১ / ১৩১; ফাতাওয়া শামি: ১ / ৫৫৫-৫৫৭) 

 

সূর্য উদিত হয়ে এক বর্শা (অর্ধ হাত) পরিমাণ উঁচু হওয়ার পর থেকে শুরু হয়ে দ্বিপ্রহর পর্যন্ত ঈদের নামাজ আদায় করা যায়। তবে ঈদুল ফিতরের নামাজ একটু দেরিতে পড়া সুন্নত; যেন নামাজের আগেই বেশি বেশি সাদকাতুল ফিতর আদায় হয়ে যায়। (ফাতহুল কাদির: ২ / ৭৩) 

মুখে উচ্চারণ করে নামাজের নিয়ত করার কোনো প্রয়োজন নেই। মনে মনে নির্দিষ্ট করতে হবে যে, আমি এ ঈদের নামাজ কিবলামুখী হয়ে এই ইমাম সাহেবের পেছনে অতিরিক্ত ছয় তাকবিরের সঙ্গে আদায় করছি। 

ঈদের নামাজে অতিরিক্ত ছয়টি তাকবির ওয়াজিব। প্রথম রাকাতে তাকবিরে তাহরিমা ও সানার পর তিন তাকবির। দ্বিতীয় রাকাতে কেরাতের পর রুকুতে যাওয়ার আগে তিন তাকবির। এই তাকবিরগুলো বলার সময় ইমাম-মুকতাদি সবাইকে হাত ওঠাতে হবে। তৃতীয় তাকবির ছাড়া প্রতি তাকবিরের পর হাত ছেড়ে দিতে হবে। 

কেউ যদি এই তাকবিরগুলো না পান, তাহলে তিনি রুকুতে থাকা অবস্থায় আদায় করে নেবেন। কারও পূর্ণ এক রাকাত ছুটে গেলে দ্বিতীয় রাকাতে কেরাতের পর তাকবিরগুলো আদায় করে নেবেন। কেরাতের আগে আদায় করারও সুযোগ রয়েছে। 

নামাজ শেষে খুতবা প্রদান ইমামের জন্য সুন্নত; তা শোনা নামাজির জন্য ওয়াজিব। (ফাতাওয়া শামি: ১ / ৫৫৯-৫৬০)

সরকার হজ্ব যাত্রীদের সর্বোত্তম সেবা দিতে বদ্ধপরিকর ঃ ধর্মমন্ত্রী
ঈদের দিনে করণীয়-বর্জনীয়
ঈদের নামাজ আদায় করবেন যেভাবে
সর্বশেষ সংবাদ