ঢাকা শনিবার, জুলাই ২০, ২০২৪
রাজবাড়ীতে হারানো ১০৭টি মোবাইল উদ্ধারের পর প্রকৃত মালিকের কাছে হস্তান্তর করলো জেলা পুলিশ
  • মীর সামসুজ্জামান
  • ২০২৪-০৭-০৮ ১৫:২৩:৪৫

রাজবাড়ী জেলায় বিভিন্ন সময় হারিয়ে বা চুরি হয়ে যাওয়া ১০৭টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করে প্রকৃত মালিকদের কাছে হস্তান্তর করেছে জেলা পুলিশ। 

 গতকাল ৮ই জুলাই সকালে নিজ কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে মালিকদের কাছে এসব মোবাইল ফোন হস্তান্তর করেন রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার জি.এম আবুল কালাম আজাদ, পিপিএম।

 গতকাল সোমবার বিকেলে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য জানান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(ক্রাইম এন্ড অপস্) মুকিত সরকার।

 জানা গেছে, রাজবাড়ী জেলার ৫টি থানায় প্রতিদিন মোবাইল হারানোর জিডি হয়। এর মধ্যে রাজবাড়ী সদর থানায় ৪২টি, গোয়ালন্দ থানায় ১২টি, পাংশা মডেল থানায় ২৩টি, কালুখালী থানায় ১২টি ও বালিয়াকান্দি থানায় ১৮টি জিডি করেন ভুক্তভোগীরা। এসব জিডি নিয়ে নিয়মিত পর্যবেক্ষণ ও উদ্ধার কাজ করে থাকেন জেলা পুলিশের একটি চৌকস টিম। যার প্রেক্ষিতে রাজবাড়ী জেলা পুলিশের সাইবার ক্রাইম মনিটরিং সেল হারানো অথবা চুরি যাওয়া ১০৭টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করে করতে সক্ষম হয়। 

 এর আগে চলতি বছরের মে মাস পর্যন্ত আরো ৪৯০টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করে জেলা পুলিশের সাইবার ক্রাইম মনিটরিং সেল। এছাড়া এমএফসি সংক্রান্তে বিকাশ বা নগদে খোয়া যাওয়া ৪২ হাজার টাকা উদ্ধার এবং ৮জনের ফেসবুক হ্যাক হয়ে যাওয়া আইডি রিকোভারি করে পুলিশের সাইবার ক্রাইম মনিটরিং সেলটি।

 পুলিশ সুপার জি.এম. আবুল কালাম আজাদ পিপিএম বলেন, রাজবাড়ী ছোট একটি জেলা। এ জেলার আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি যথেষ্ট ভালো। জেলা পুলিশ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষার পাশাপাশি প্রান্তিক মানুষের মোবাইলগুলো উদ্ধার ও সাইবার ক্রাইম মনিটরিং করে থাকে। মোবাইল হারানো বা বিকাশের মাধ্যমে টাকা নিয়ে যাওয়া ও একজনের পারসোনাল ছবি পোস্ট করে তাকে ব্ল্যাকমেইল করা ভিকটিমের মধ্যে যে মানসিক কষ্ট সেই কষ্টটা দূর করার জন্য আন্তরিকভাবে চেষ্টা করা হয়। মোবাইল, বিকাশ প্রতারণা, ফেসবুক হ্যাক করে টাকা নিয়ে যাওয়া ও ফেসবুকে আপত্তিকর ছবি পোস্ট মুছে ফেলার পর ভিকটিমের মুখের হাসি, সেটি আমাদেরকে আরও বেশি কাজে অনুপ্রাণিত করে। এ কাজটি আমরা করে যাবো।

 তিনি আরও বলেন, রাজবাড়ী জেলার প্রতিটি থানায় মোবাইল হারানো জিডি, বিকাশ প্রতারণা ও ফেসবুক হ্যাক সংক্রান্ত জিডি হয়। সেই জিডির প্রেক্ষিতে জেলা পুলিশের সাইবার ক্রাইম মনিটরিং সেলের একটি চৌকস টিম উক্ত মোবাইলগুলো উদ্ধার, বিকাশ প্রতারণা ও ফেসবুক হ্যাকসহ অন্যান্য সাইবার অপরাধ সম্পর্কে সর্বদা নজরদারি করে থাকে। মোবাইল হারিয়ে বা চুরি হয়ে যায় তাদের মনের মধ্যে একটা বিষন্নতা কাজ করে। আমরা যখন তাদের এই ফোন গুলো উদ্ধার করে তাদের কাছে ফেরত দেই তাদের মুখের হাসিটাই আমাদের ভালো লাগার জায়গা।

 হারানো বা চুরি যাওয়া মোবাইল ফোন ফিরে পেয়ে প্রকৃত মাকিকরা আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। এ সময় তারা বলেন, হারিয়ে যাওয়া বা চুরি যাওয়া মোবাইল ফোন ফিরে পাবো এটা কখনো ভাবিনি। আমরা আজকে মোবাইল ফোন ফিরে পেলাম। আমাদের খুব আনন্দ লাগছে। জেলা পুলিশের প্রতি আমাদের আস্থা বহুগুণে বেড়ে গেলো।

 মোবাইল ফোন হস্তান্তরকালে জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(প্রশাসন ও অর্থ) মোঃ রেজাউল করিম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম এন্ড অপস্) মুকিত সরকারসহসহ জেলা পুলিশের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

 
 রাজবাড়ীতে পবিত্র আশুরা উপলক্ষ্যে আঞ্জুমান-ই-কাদেরীয়ার শোক মিছিল
রাজবাড়ীতে বিএনপি কার্যালয়ে কোটা সংস্কার আন্দোলনে সহিংসতায় নিহত শিক্ষার্থীদের গায়েবী জানাযা অনুষ্ঠিত
রাজবাড়ীতে ছাত্রদলের মিছিলে পুলিশের বাঁধা
সর্বশেষ সংবাদ