ঢাকা শনিবার, জুলাই ২০, ২০২৪
রাজবাড়ীতে উজানের ঢল ও ভারী বর্ষণে নদীতে পানি বৃদ্ধি অব্যাহত
  • মীর সামসুজ্জামান
  • ২০২৪-০৭-০৯ ১৫:০৩:৩২

 উজান থেকে নেমে আসা ঢল ও গত কয়েক দিনের ভারী বর্ষণে রাজবাড়ী জেলার সকল নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। 

 গত ২৪ ঘন্টায় জেলার ছয়টি পয়েন্টেই নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমানে পদ্মা নদীর গোয়ালন্দ পয়েন্টে পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমা ছুঁই ছুঁই করছে। প্রতিদিন গড়ে ১০ থেকে ১৫ সেন্টিমিটারের বেশি পানি বাড়ছে। এভাবে পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকলে অচিরেই বিপদসীমা অতিক্রম করে রাজবাড়ীতে নিম্নাঞ্চলে বন্যার আশঙ্কা রয়েছে। ইতোমধ্যেই পানি বৃদ্ধির কারণে জেলার গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া এলাকায় নদী ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে।

 রাজবাড়ী পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) সূত্রে জানা গেছে, গত ২৪ ঘন্টায় (৮ জুলাই সকাল ৬টা থেকে ৯ জুলাই সকাল ৬ টা পর্যন্ত) ১ সেন্টিমিটার পানি বৃদ্ধি পেয়ে পদ্মা নদীর গোয়ালন্দ পয়েন্টে পানির লেভেল রয়েছে ৭ দশমিক ৮২ সেন্টিমিটার। এই পয়েন্টে পানির বিপদসীমা ৮ দশমিক ২০ সেন্টিমিটার। গোয়ালন্দে পদ্মার পানি বিপদসীমার ৩৮ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

 এছাড়া গত ২৪ ঘন্টায় কুমার নদের পানি ৩ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে পানির লেভেল রয়েছে ৭ দশমিক ৮৬ সেন্টিমিটার। এই পয়েন্টের পানির বিপদসীমা ৯ দশমিক ৬০ সেন্টিমিটার। একই সাথে গত ২৪ ঘন্টায় গড়াই নদীর পানি বেড়েছে ৭ সেন্টিমিটার। এই নদীর কামারখালী ব্রিজ পয়েন্টে পানির বর্তমান লেভেল রয়েছে ৫দশমিক ১৬ সেন্টিমিটার। এই পয়েন্টে পানির বিপদসীমা ৭ দশমিক ৭৫ সেন্টিমিটার।

 অপরদিকে গত ২৪ ঘন্টায় হড়াই নদীর মহেন্দ্রপুর পয়েন্ট পানি বেড়েছে ৩ সেন্টিমিটার।এ ই পয়েন্ট পানির লেভেল রয়েছে ৮.০১ সেন্টিমিটার। এই পয়েন্টে পানির বিপদসীমা ৯.৭৫ সেন্টিমিটার।

 পানি বৃদ্ধি পেয়েছে চন্দনা নদীতেও। গত ২৪ ঘন্টায় গতমপুর এলাকায় চন্দনা নদীর সেনগ্রাম পয়েন্টে পানি বেড়েছে ৫ সেন্টিমিটার। এই পয়েন্টে বর্তমানে পানির লেভেল ৮ দশমিক ০৩ সেন্টিমিটার। এই পয়েন্টের পানির বিপদসীমা ১০ দশমিক ৫২ সেন্টিমিটার এবং গত ২৪ ঘন্টায় চত্রা নদীর নাড়ুয়া পয়েন্টে পানি বেড়েছে ৭ সেন্টিমিটার। এই পয়েন্টে পানির লেভেল রয়েছে ৫ দশমিক ২৬ সেন্টিমিটার। এই পয়েন্টের পানির বিপদসীমা ৭ দশমিক ৮৫ সেন্টিমিটার।

 রাজবাড়ী পানি উন্নয়ন বোর্ড(পাউবো) উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী এম এ শামীম বলেন, উজান থেকে নেমে আসা ঢল ও গত কয়েকদিনের বৃষ্টিতে রাজবাড়ী জেলার সকল নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। গোয়ালন্দ পয়েন্টে পানি বিপদসীমার ৩৮ সেন্টিমিটার নিচে রয়েছে। তবে এখনো জেলার কোথাও এখনো বন্যার দেখা যায়নি এবং কোথাও পানিবন্দি মানুষ নেই।

 রাজবাড়ী জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা সৈয়দ আরিফুল হক জানান, বন্যার পূর্ব প্রস্তুতি হিসেবে জেলা প্রশাসকের সভাপতিত্বে সভা করেছেন এবং আমাদের প্রস্তুতিও রয়েছে। এখন পর্যন্ত জেলার কোথাও বন্যা ও নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হওয়ার খবর পাননি। তারপরও প্রস্তুতি হিসেবে ১২টি ফ্লাড শেল্টার প্রস্তুতের পাশাপাশি ৬শ মেট্রিক টন চাল ও নগদ ১২ লাখ টাকা মজুদ রাখা হয়েছে।

 
 রাজবাড়ীতে পবিত্র আশুরা উপলক্ষ্যে আঞ্জুমান-ই-কাদেরীয়ার শোক মিছিল
রাজবাড়ীতে বিএনপি কার্যালয়ে কোটা সংস্কার আন্দোলনে সহিংসতায় নিহত শিক্ষার্থীদের গায়েবী জানাযা অনুষ্ঠিত
রাজবাড়ীতে ছাত্রদলের মিছিলে পুলিশের বাঁধা
সর্বশেষ সংবাদ