ঢাকা শনিবার, মে ২৮, ২০২২
রাজবাড়ীতে লুণ্ঠন করে তারা টাকার পাহাড় গড়ে শান্তিপূর্ণ রাজনৈতিক সহাবস্থান হরণ করেছে----খৈয়ম
  • শেখ রনজু আহাম্মেদ/আসাদুজ্জামান নুর
  • ২০২২-০৪-২৬ ০০:৪১:৫০

রাজবাড়ী-১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য আলী নেওয়াজ মাহমুদ খৈয়মের আয়োজনে গতকাল ২৫শে এপ্রিল শহরের সজ্জনকান্দাস্থ নিজ বাসভবনে ৬সহস্রাধিক মানুষের অংশগ্রহণে ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।
  ইফতার মাহফিলের পূর্বে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে সাবেক এমপি আলী নেওয়াজ মাহমুদ খৈয়ম বলেন, বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার ভোট ডাকাতির সরকার। বারবার ভোট চুরি ও ডাকাতি করে, ভোটের আগের দিন রাতে ব্যালট পেপার ভরে তারা অবৈধভাবে ক্ষমতায় রয়েছে। ২০১৮ সালের বিগত সংসদ নির্বাচনে এই এলাকার বিএনপির নেতাকর্মীরা বাড়ীতে থাকতে পারেনি, ঘরে ঘুমাতে পারেনি। বর্তমান সরকার ও তাদের পেটোয়া পুলিশ বাহিনী কী করেছে সকলেই জানে। সারা দেশের মতো রাজবাড়ীতেও তারা কাজী কেরামত আলী ও কাজী ইরাদত আলীর নেতৃত্বে প্রকাশ্যে ভোট ডাকাতি করেছে। সমগ্র রাজবাড়ীতে লুণ্ঠন করে তারা টাকার পাহাড় গড়েছে। তাদের নেতৃত্বে এই এলাকায় শান্তি ভঙ্গ হয়েছে। যত দুষ্কৃতকারী, যত সন্ত্রাসী আছে-তাদেরকে সংগঠিত করে এই অঞ্চলের যে শান্তিপূর্ণ রাজনৈতিক সহাবস্থান ছিল তা হরণ করেছে। এই পরিস্থিতি সমগ্র বাংলাদেশেই চলছে। গত ১৫ বছর ধরে দেশবাসীর উপর নির্যাতনের স্টিম রোলার চালানো হচ্ছে। আমরা অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরক্ষে নির্বাচন চাই। কিন্তু এই সরকারের অধীনে তা কোনভাবেই সম্ভব না। এ জন্য নির্দলীয়, নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন না হলে আমরা তাতে অংশ নিব না। তত্ত্বাবধায় সরকার ছাড়া নির্বাচন হলে হাসিনা আবারও দিনের ভোট রাতে বাক্সে ভরবে। তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া নির্বাচন হলে সেই নির্বাচন ফেয়ার হবে না। এ জন্য সবাইকে এই অবৈধ সরকারের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। 
  তিনি বলেন, এখন শেখ হাসিনার সরকারের বিরুদ্ধে আমেরিকা, ইউরোপসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ কথা বলছে। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বিরুদ্ধে স্যাংশন(নিষেধাজ্ঞা) দিচ্ছে। ছাত্র, কৃষক, শ্রমিক, কামার, কুমার, জেলেসহ সমস্ত মানুষ এই সরকারের বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠেছে। তাই আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আমাদের নেতা তারেক রহমানের নেতৃত্বে, বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে আমরা ঐক্যবদ্ধ থাকবো। গণতান্ত্রিক পন্থায় এই সরকারের পতন ঘটাবো।
  তিনি আরও বলেন, আমি স্থানীয় প্রশাসনকে বলতে চাই এই সরকারের পতনের দিন আর বেশী দূরে নয়। জনরোধে শেখ হাসিনার সরকার ভেঙে খানখান হয়ে যাবে। তাই আপনারা দিনকে দিন, রাতকে রাত বলুন। কালোকে কালো, সাদাকে সাদা বলুন। সত্যকে সত্য, মিথ্যাকে মিথ্যা বলুন। গণতন্ত্র আমাদের মৌলিক অধিকার। সেই অধিকার আপনারা খর্ব করতে পারেন না। ঈদের পরে আমরা রাজবাড়ীতে জনসভা করবো। কোন বাঁধা আসলে আমরা তা মানবো না। বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনগুলোর সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের প্রতি আমার অনুরোধ থাকবে আপনারা গ্রামে গ্রামে যাবেন। সাধারণ মানুষকে বোঝাবেন। আধার কেটে গিয়ে নতুন সূর্য উঠবেই। কেউ ঘাবরাবেন না। পৃথিবীর কোন স্বৈরশাসক ক্ষমতায় জোর করে ঠিকে থাকতে পারবে না। গণতান্ত্রিক সংগ্রামের মধ্য দিয়ে আমাদের গণতন্ত্রকে রক্ষা করতে হবে।
  ইফতার মাহফিলে যুক্তরাজ্য বিএনপির নেতা হুমায়ুন কবীর, জেলা বিএনপির সাবেক আহ্বায়ক নঈম আনছারী, সাবেক সদস্য সচিব এবিএম মঞ্জুরুল আলম দুলাল, সাবেক সহ-সভাপতি এডঃ আসাদুজ্জামান লাল, আলতাফ হোসেন মুরাদ, কালুখালী উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক এডঃ আব্দুর রাজ্জাক খান, বিএনপি নেতা আফছার আলী সরদারসহ বিএনপি ও সহযোগী সংগঠন এবং বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের বিভিন্ন পর্যায়ের প্রায় ৬ হাজার নেতাকর্মী অংশগ্রহণ করেন। 
  ইফতারের পূর্বে দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন জাতীয়তাবাদী ওলামা দলের জেলা শাখার সভাপতি, নিকাহ রেজিস্ট্রার ও সদর উপজেলার দাদশী ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান হাফেজ মাওলানা মোঃ লোকমান হোসেন।    

 

দেশব্যাপী দলীয় নেতাকর্মীদের উপর হামলার প্রতিবাদে রাজবাড়ীতে বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশ
রাজবাড়ীতে লুণ্ঠন করে তারা টাকার পাহাড় গড়ে শান্তিপূর্ণ রাজনৈতিক সহাবস্থান হরণ করেছে----খৈয়ম
রাজবাড়ী সদর উপজেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে দোয়া ও ইফতার মাহফিল
সর্বশেষ সংবাদ