ঢাকা বৃহস্পতিবার, আগস্ট ১১, ২০২২
ইসলামাবাদে বাংলাদেশ হাইকমিশনে শেখ কামালের জন্মবার্ষিকী উদযাপন
  • স্টাফ রিপোর্টার
  • ২০২২-০৮-০৬ ০২:২৬:০৭

পাকিস্তানের রাজধানী ইসলামাবাদস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশনের আয়োজনে গতকাল ৫ই আগস্ট নানা কর্মসূচী পালনের মাধ্যমে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জ্যেষ্ঠ পুত্র বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের ৭৩তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন করা হয়। 
  এ উপলক্ষ্যে হাইকমিশনের লবি ও সভা কক্ষ ব্যানার ও পোস্টারের মাধ্যমে সজ্জিত করা হয়। শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ, রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বাণী পাঠ, আলোচনা সভা, প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন এবং দোয়া-মোনাজাত করা হয়। হাইকমিশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন। 
  আলোচনা পর্বে হাইকমিশনার মোঃ রুহুল আলম সিদ্দিকী শহীদ শেখ কামালের স্বল্পস্থায়ী কর্মময় জীবনের উপর আলোকপাত করেন এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রাম, ক্রীড়া ও সংস্কৃতির ক্ষেত্রে তার অবদানের কথা তুলে ধরেন।
  তিনি বলেন, ক্যাপ্টেন শেখ কামাল মুক্তিযুদ্ধকালে মুক্তিবাহিনীর সর্বাধিনায়ক জেনারেল এমএজি ওসমানীর এডিসি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। স্বাধীন বাংলাদেশের ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক আন্দোলনে শেখ কামালের অবদান চিরস্মরণীয়। ব্যক্তিগতভাবে তিনি একাধারে বাস্কেটবল, ক্রিকেট ও ভলিবল খেলতেন। শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামাল একজন সফল ক্রীড়া সংগঠকও ছিলেন। খেলোয়াড়দের স্বাবলম্বী করার জন্য নানা উদ্যোগ গ্রহণের পাশাপাশি তিনি তাদের কল্যাণে ১০ লক্ষ টাকার একটি ‘খেলোয়াড় কল্যাণ তহবিল’ গঠন করেন। আবাহনী ক্রীড়া চক্র ও স্পন্দন শিল্পী গোষ্ঠী প্রতিষ্ঠা করেন। এছাড়াও তিনি একজন সেতার বাদক ও নাট্যকর্মী ছিলেন। নাট্যদল ‘ঢাকা থিয়েটার’ গড়ে তোলায় অবদান রাখেন। ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগস্ট ইতিহাসের জঘন্যতম হত্যাকান্ডে বঙ্গবন্ধু ও পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সাথে তিনি শহীদ হন। তার ২৬ বছরের সংক্ষিপ্ত জীবন ছিল অসামান্য অর্জনে সমৃদ্ধ। তিনি বাংলাদেশের ইতিহাসের সূর্য সন্তান হিসেবে প্রতিষ্ঠিত থাকবেন। 

 

ইসলামাবাদে বাংলাদেশ হাইকমিশনে শেখ কামালের জন্মবার্ষিকী উদযাপন
মরনোত্তর ‘দ্যাগ হ্যামারশোল্ড’ পদকে ভূষিত ২জন বাংলাদেশী শান্তিরক্ষী
সশস্ত্র সংঘাতে বেসামরিক নাগরিকদের সুরক্ষায় আরও কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণে জাতিসংঘে বাংলাদেশের আহ্বান
সর্বশেষ সংবাদ