ঢাকা মঙ্গলবার, মার্চ ৫, ২০২৪
দৌলতদিয়া এইডসের ঝুঁকিতে চার হাজার যৌনকর্মী; প্রতিরোধে নেই কোনো কার্যক্রম
  • মইনুল হক মৃধা
  • ২০২৩-১২-০২ ১৪:৩৬:০২

 মরণব্যাধি হিসেবে সু-পরিচিত এইচআইভি/এইডস আক্রান্ত ঝুঁকিতে রয়েছে দেশের অন্যতম বৃহত্তর রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া যৌনপল্লীর যৌনকর্মীরা। এ পর্যন্ত এখানে ৫জন এইডস রোগী শনাক্ত হয়েছে।

 গত ১লা ডিসেম্বর ছিলো বিশ^ এইডস দিবস। সারা দেশে নানা কর্মসূচি আয়োজনের মধ্য দিয়ে দিবসটি উদযাপন করা হলেও দৌলতদিয়া যৌনপল্লীতে এইডস প্রতিরোধে যথাযথ সচেতনতা মূলক কার্যক্রম না থাকায় এই রোগে সংক্রমণ বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে।

 জানা গেছে, দৌলতদিয়া যৌনপল্লী সংশ্লিষ্ট একাধিক বেসরকারী সংগঠন জরিপ চালিয়েছে। এর মধ্যে মুক্তি মহিলা সমিতির সম্প্রতি চালানো জরিপ অনুযায়ী এখানে ১হাজার ৫০ জনের মতো যৌনকর্মী, ২৮১ জন বাড়িওয়ালী ও ৫০০টি শিশু রয়েছে। এর বাইরেও বয়স্ক নারী ও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা মিলে আরও এক হাজারসহ প্রায় চার হাজার বাসিন্দা রয়েছেন, যাঁরা প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে এইচআইভি/এইডসসহ নানা যৌন রোগের ঝুঁকিতে রয়েছেন।

 গণস্বাস্থ্য সংস্থা দৌলতদিয়ার জরিপ অনুযায়ী, দৌলতদিয়া যৌনপল্লীতে প্রায় ১ হাজার ৩০০ জন যৌনকর্মীসহ প্রায় চার হাজার মানুষ বাস করেন। তাঁরা প্রত্যেকে এইচআইভি/এইডসসহ নানা যৌন রোগের ঝুঁকিতে আছেন। সর্বশেষ গত আগস্ট মাসের সমীক্ষা অনুযায়ী, দৌলতদিয়ায় তিনজন যৌনকর্মী এবং স্থানীয় দুজন পুরুষ খদ্দেরসহ মোট ৫জন এইচআইভি শনাক্ত হয়েছেন।

 যৌনপল্লীর কয়েকজন বাসিন্দা বলেন, বিভিন্ন স্থান থেকে প্রতিদিন কয়েক হাজার পুরুষ পল্লিতে যাতায়াত করেন। এখানে আসা লোকজন কনডম ব্যবহারে অনাগ্রহী। এ কারণে এখানে এইচআইভি/এইডস আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বেশি। তারা আরো বলেন, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র ও পায়াকট বাংলাদেশ নামক সংস্থা এইডস ও যৌনরোগ নিয়ে পল্লিতে কাজ শুরু করেছে।

 দৌলতদিয়া গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ব্যবস্থাপক মোঃ জুলফিকার আলী বলেন, গত ১লা ডিসেম্বর সরকারী ছুটি থাকায় এইডস দিবসের কোনো কর্মসূচি নেই। সিভিল সার্জনের পরামর্শে রবিবার দিবসটি উপলক্ষে আলোচনা সভা হবে।

 তিনি আরো বলেন, আগের জরিপে এখানকার ৪জন এইডসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত করা হয়। সর্বশেষ গত আগস্ট মাসে আরেকজন যৌনকর্মীর শরীরে এইডস শনাক্ত হয়েছে।

 গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ফারসিম তারান্নুম হক বলেন, যৌনকর্মী ও তাঁদের কাছে আসা লোকজন মারাত্মক ঝুঁকিতে আছেন। এ জন্য এইডস সহ অন্যান্য যৌনরোগের সংক্রমণ কমাতে বিভিন্ন বেসরকারী সংগঠনের মাধ্যমে স্বাস্থ্য বিভাগ পল্লীতে কাজ করছে। তাদের নিয়মিত মনিটরিং ছাড়াও জটিল এবং সন্দেহজনক রোগীদের চিকিৎসা ও পরামর্শ দিয়ে থাকে।

 

বালিয়াকান্দির বিভিন্ন সড়কে পড়ে থাকা ইটভাটার মাটি এখন যেন মরণ ফাঁদ!
গোয়ালন্দে ৭ই মার্চসহ ৪টি জাতীয় দিবস উপলক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভা
পাংশায় সৈয়দ বায়তুল্লাহ কিন্ডার গার্টেনে ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ
সর্বশেষ সংবাদ