ঢাকা শনিবার, জুলাই ২০, ২০২৪
দাদশী ইউপি চেয়ারম্যান দেলোয়ার শেখের বিরুদ্ধে সাইবার ট্রাইব্যুনালে স্মৃতির মামলা
  • মীর সামসুজ্জামান
  • ২০২৪-০৭-১০ ১৫:৩৩:০৪

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ফেইক আইডি খুলে মানহানিকর প্রচারণা করার অভিযোগে রাজবাড়ী সদর উপজেলার দাদশী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ দেলোয়ার শেখের নামে সাইবার নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে।

 গত ৭ই জুলাই রাজবাড়ী ব্লাড ডোনার্স ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সোনিয়া আক্তার স্মৃতি বাদী হয়ে ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালে মামলাটি দায়ের করেন। মামলায় অজ্ঞাত আরো ৪/৫জনকে আসামী করা হয়েছে। 

 মামলার বাদী সোনিয়া আক্তার স্মৃতি রাজবাড়ী ব্লাড ডোনার্সের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি। এ ছাড়াও তিনি রাজবাড়ী জেলা মহিলা দলের সদস্য। তার স্বামী খোকন আহমেদ প্রবাসী। দুই সন্তানের জননী সোনিয়া আক্তার স্মৃতি শহরের ৩নং বেড়াডাঙ্গা এলাকায় বসবাস করেন।

 অপরদিকে মামলার আসামী মোঃ দেলোয়ার শেখ সদর উপজেলার সিংগা নিজাতপুর গ্রামের মোঃ আব্দুর কুদ্দুস শেখের ছেলে ও রাজবাড়ী সদর উপজেলার দাদশী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান।

 মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত ১৮ই জুন দাদশী ইউনিয়নের সিংগা নিজাতপুর বাজারে কোরবানীর ঈদ উপলক্ষ্যে অস্থায়ী গরুর হাটকে কেন্দ্র করে রাত ১১টার দিকে ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ দেলোয়ার শেখ ও একই এলাকার সৌদি প্রবাসী আকবর খান গ্রুপের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটে। এতে দুই পক্ষের লোকজনই আহত হয়। ওই রাতে মামলার বাদী সোনিয়া আক্তার স্মৃতি ফেসবুক ব্রাউজ করার সময় একটা ফেসবুক পেজ থেকে ইউপি চেয়ারম্যান দেলোয়ার শেখ ও আকবর খানের মারামারির পরবর্তী লাইভ দেখেন। তখনই সর্বপ্রথম লাইভে মারামারির ঘটনা ও ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবীর ঘটনায় মামলা দায়েরের বিষয়ে জানতে পারেন এবং ঘটনার বিস্তারিত জেনে আকবর খানের চাঁদা দাবীর ঘটনা মিথ্যা ও ভিত্তিহীন মনে হওয়ায় এবং আকবর খানের সামাজিক অবস্থান অনেক উঁচুমানের হওয়ায় তিনি ৫ লাখ টাকা চাঁদা চাইবেন বিষয়টি তার কাছে হাস্যকর মনে হওয়ায় সোনিয়া আক্তার স্মৃতি আকবর খানের পক্ষে একটি পোস্ট করেন। পোস্ট করার পরে সোনিয়া আক্তার স্মৃতিকে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ইউপি চেয়ারম্যান দেলোয়ার শেখসহ অজ্ঞাতনামা ৪/৫ জন তাদের ফেসবুক আইডি থেকে ও দেলোয়ার শেখের সহযোগিতায় ফেসবুকে ফেইক আইডি খুলে সোনিয়া আক্তার স্মৃতির মানহানী হয় এমন নানাবিধ ছবি আপলোড করে। কিছু ছবি কম্পিউটারের মাধ্যমে ক্রপ করে ও কাটছাট করে স্মৃতি ও আকবর খানের মানহানী করতে থাকে। চেয়ারম্যান দেলোয়ার শেখ ও তার ৪/৫ জন সহযোগী ফেসবুকে ফেইক আইডি খুলে সোনিয়া আক্তার স্মৃতির ছবি ও ভিডিও মানহানীকর বক্তব্যের সাথে এডিটিং করে দেলোয়ার শেখ নিজে “দাদশী ইউনিয়ন পরিষদ রাজবাড়ী” ও “সুমন গাজী” আইডি খুলে বিভিন্ন পোস্ট দেয় ও দেলোয়ার শেখের সহযোগীরা বিভিন্ন আইডি থেকে বিভিন্ন কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য প্রকাশ করে স্মৃতি ইসলামকে সামাজিক, অর্থনৈতিক ও মানসিক ক্ষতি করায় সাইবার নিরাপত্তা আইন ২০২৩ এর ২৪, ২৫, ২৬, ২৯ ও ৩৩ ধারায় অপরাধ করে।

 পরবর্তীতে সোনিয়া আক্তার স্মৃতি গত ২রা জুলাই রাত ৯টার দিকে এ বিষয়ে রাজবাড়ী সদর থানায় অভিযোগ দায়ের করতে গেলে থানা কর্তৃপক্ষ অভিযোগ আমলে না নিলে সোনিয়া আক্তার স্মৃতি তার আত্মীয় ও আইনজ্ঞদের সাথে আলোচনা করে গত ৭ই জুলাই ঢাকার সাইবার ট্রাইবুনালে সাইবার নিরাপত্তা আইন, ২০২৩ এর ২৪/২৫/২৬/২৯ ও ৩৩ ধারায় মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং-৩২৯/২০২৪। মামলায় নিজাতপুর গ্রামের আকবর খান, বড় লক্ষীকোল গ্রামের আহম্মদ আলী চৌধুরী, রামচন্দ্রপুর গ্রামের জহিরুল ইসলাম ওরফে নুর নবী, ধুলদী রঘুনাথপুর গ্রামের মোঃ ইউসুফ আহম্মেদ ও ১নং বেড়াডাঙ্গার মেহেদী হাসানকে সাক্ষী করা হয়েছে।

 বিজ্ঞ আদালত শুনানীঅন্তে আগামী ২৩শে অক্টোবর তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ফরিদপুরের সিবিআইকে নির্দেশ দিয়েছেন।

 এ বিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান দেলোয়ার শেখের বক্তব্য নিতে তাকে ফোন করা হলে তিনি বলেন, আমি অসুস্থ, বুকে ব্যাথা করছে। এ বিষয়ে পরে কথা বলবো, এখন ফোন রাখেন।

 

পাংশায় নবাগত স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার মতবিনিময়
বালিয়াকান্দিতে বিপুল পরিমান নিষিদ্ধ চায়না জাল জব্দ
পাংশা মডেল থানা পুলিশের অভিযানে চোরাই মালামালসহ ২জন গ্রেফতার
সর্বশেষ সংবাদ