ঢাকা রবিবার, আগস্ট ১, ২০২১
রাজবাড়ী জেলায় আরো ৪২জন করোনায় আক্রান্ত॥লকডাউনেও মানছে না স্বাস্থ্যবিধি
  • চঞ্চল সরদার
  • ২০২১-০৬-২৩ ০০:৪৭:১০

রাজবাড়ী জেলায় গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে আরো ৪২ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা আশংকাজনকভাবে বৃদ্ধি পাওয়ায় লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। 
  তবে লকডাউনের প্রথম দিনে রাজবাড়ীর বিভিন্ন সড়কে ঘুরে দেখা যায় অন্যদিনের মতো তিন চাকার গাড়িগুলো সড়কে দাঁপিয়ে বেড়াচ্ছে। সেখানে মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি। অনেকেই আবার মুখে পড়ছে না মাস্ক। রাজবাড়ীর বাজারগুলোতেও মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি।  তাই প্রশাসনের কঠোর নজরদারি চান সচেতন মহল। না হলে রাজবাড়ী জেলাকে করোনা মহামারীর হাত থেকে রক্ষা করা যাবে না। 
  এ জেলায় ২০২০ সালের ৭ই এপ্রিল প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। গতকাল ২২শে জুন পর্যন্ত রাজবাড়ীতে মোট করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ৪হাজার ৫৫৪ জন। তার মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৪হাজার ২০৬ জন। এছাড়াও মৃত্যুবরণ করেছে ৩৮ জন। 
  গতকাল ২২শে জুন বিকালে রাজবাড়ীর সিভিল সাজর্ন ডাঃ মোহাম্মদ ইব্রাহিম টিটন বিষয়টি নিশ্চিত করেন। 
  সিভিল সার্জন ডাঃ মোহাম্মদ ইব্রাহিম টিটন বলেন, গত ২৪ ঘন্টায়  র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন্টের মাধ্যমে ৭৩টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। তার মধ্যে ৩৬ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া যায়। এর মধ্যে রাজবাড়ী সদরে ১২ জন, গোয়ালন্দে ১৬ জন, পাংশায় ৬ জন ও কালুখালীতে ২ জন। 
  এছাড়াও গত ১৯শে জুন আরটি পিসিআরের মাধ্যমে ৩৮টি নমুনা পরীক্ষার জন্য ঢাকাতে পাঠানো হয়। আজকে তাদের রিপোর্ট হাতে পেয়েছি তার মধ্যে ৬ জনের করোনা পজিটিভ। যার মধ্যে রাজবাড়ী সদরে ৫জন ও গোয়ালন্দে ১জন। শনাক্তের হার ৫৬.৭%।
  এই জেলাতে মোট করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ৪হাজার ৫ শত ৫৪ জন। তার মধ্যে রাজবাড়ী সদর উপজেলার ২ হাজার ৫ শত ২৯ জন, পাংশায় ৯ শত ৬৩ জন, কালুখালীতে ২ শত ৮৫জন, বালিয়াকান্দিতে ৩ শত ৫১জন, গোয়ালন্দ উপজেলার ৪ শত ২৬জন। তার মধ্যে থেকে সুস্থ হয়েছে ৪ হাজার ২০৬ জন। 
  এছাড়াও মৃত্যু হয়েছে ৩৮ জনের। এর মধ্যে সদর উপজেলার ২২ জন, পাংশায় ৯ জন, কালুখালীতে ৩ জন, বালিয়াকান্দিতে ২জন, গোয়ালন্দ উপজেলার ২জন। করোনায় আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে হোম আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন আছে ২৯৪ জন। হাসপাতালে ভর্তি আছে ১৬ জন ।
  উল্লেখ্য, রাজবাড়ীতে দিন দিন করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় গতকাল ২২শে জুন থেকে লকডাউন শুরু হয়েছে। যা চলবে ৩০শে জুন পর্যন্ত।

 

রাজবাড়ীর গোদার বাজারে ৬শ মিটার নদী তীর প্রতিরক্ষার প্রকল্পে ২শ মিটার বিলীন॥কাজের মান নিয়ে প্রশ্ন
গোদার বাজারে পদ্মা নদী ভাঙ্গন রোধের কাজ পরিদর্শনে এমপি কাজী কেরামত আলী
রাজবাড়ীতে নদী ভাঙ্গন ঠেকাতে আমাদের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে--- এমপি সালমা চৌধুরী রুমা
সর্বশেষ সংবাদ