ঢাকা সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২২
পবিত্র আশুরা উপলক্ষে রাজবাড়ীতে আঞ্জুমান-ই-কাদেরীয়ার উদ্যোগে বিশাল শোক র‌্যালী
  • স্টাফ রিপোর্টার
  • ২০২২-০৮-১০ ০২:৪৯:৪৬
পবিত্র আশুরা গতকাল ৯ই আগস্ট রাজবাড়ী শহরে আঞ্জুমান-ই-কাদেরীয়ার উদ্যোগে বিশাল শোক র‌্যালী অনুষ্ঠিত হয়েছে -মাতৃকণ্ঠ।

যথাযোগ্য ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও নানা কর্মসূচীর মধ্যদিয়ে গতকাল ৯ই আগস্ট সারা দেশের ন্যায় রাজবাড়ীতেও পবিত্র আশুরা পালিত হয়েছে।
  কারবালার শোকাবহ ও হৃদয় বিদারক ঘটনার এই দিনটি ধর্মীয়ভাবে বিশ্বের মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের কাছে বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ। মুসলিম বিশ্বে ত্যাগ ও শোকের প্রতীক হিসেবে এ দিনটি বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ পবিত্রতম দিবস।
  হিজরী ৬১ সনের ১০ই মহররম এই দিনে মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)-এর দৌহিত্র হযরত ইমাম হোসেইন(রাঃ) ও তাঁর পরিবার এবং অনুসারীরা সত্য ও ন্যায়ের পক্ষে যুদ্ধ করতে গিয়ে ফোরাত নদীর তীরে কারবালা প্রান্তরে ইয়াজিদ বাহিনীর হাতে শহীদ হন।
  পবিত্র আশুরা উপলক্ষে প্রতি বছরের ন্যায় এবারও গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০টায় রাজবাড়ীতে আঞ্জুমান-ই-কাদেরীয়ার উদ্যোগে বিশাল শোক র‌্যালী খানকা শরীফ বড় মসজিদ থেকে বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে একই স্থানে এসে শেষ হয়। 
  রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী, রাজবাড়ী আঞ্জুমান-ই-কাদেরীয়ার সেক্রেটারী খোকন কাদেরী, খানকা শরীফ জামে মসজিদের(বড় মসজিদের) ইমাম হাফেজ মোঃ শাজাহান, নাসিম শফিসহ আঞ্জুমান-ই-কাদেরীয়ার বিপুল সংখ্যক ভক্ত-মুরীদান এই তাজিয়া মিছিলে অংশগ্রহণ করেন। 
  শোক র‌্যালী শেষে খানকা শরীফ বড় মসজিদ প্রাঙ্গণে হযরত ইমাম হোসাইন(রাঃ) সহ কারবালা প্রান্তরে ইয়াজিদের বাহিনীর হাতে শাহাদতবরণকারী সকল শহীদের রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া ও মিলাদ মাহফিল পরিচালনা করেন খানকা শরীফ বড় মসজিদের ইমাম হাফেজ মাওলানা মোঃ শাহজাহান। 
  অপরদিকে, একই সময়ে আঞ্জুমান-ই-কাদেরীয়ার উদ্যোগে দৌলতদিয়া খানকা শরীফ থেকেও একটি শোক র‌্যালী বের করা হয়। কাদেরীয়া তরিকার কয়েক হাজার ভক্ত-মুরিদান তাতে অংশগ্রহণ করেন। শোক র‌্যালী শেষে সেখানেও দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। 
  কারবালার মর্মস্পর্শী এ ঘটনা স্মরণ করে প্রতি-হিজরী সনের ১০ই মহররম বিশ্বের মুসলিম সম্প্রদায় যথাযোগ্য ধর্মীয় মর্যাদায় শোকাবহ দিনটি পালন করে থাকে। শান্তি ও সম্প্রীতির ধর্ম ইসলামের মহান আদর্শকে সমুন্নত রাখতে তাদের এই আত্মত্যাগ মানবতার ইতিহাসে সমুজ্জ্বল হয়ে রয়েছে। 
  কারবালার এই শোকাবহ ঘটনা ও পবিত্র আশুরার শাশ্বত বাণী সকলকে অন্যায় ও অত্যাচারের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে এবং সত্য ও সুন্দরের পথে চলতে প্রেরণা যোগায়। পবিত্র আশুরা মানেই শোকের-মাতম। ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা তাজিয়া মিছিলের মাধ্যমে তাদের হৃদয়-নিংড়ানো শোকের বহিঃপ্রকাশ ঘটায়। এবছরও পবিত্র আশুরার আবশ্যক সকল ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠান প্রতিপালিত হয়।

 

বাগমারায় আদালতের স্থিতাবস্থা উপেক্ষা করে পাকা স্থাপনা নির্মাণ॥ফের মামলা
রাজবাড়ীর দুই ইউপিতে জেলা পরিষদের নির্বাচনে আ’লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী আরুজের মতবিনিময় সভা
মীনা দিবস উপলক্ষ্যে রাজবাড়ীতে র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত
সর্বশেষ সংবাদ