ঢাকা শুক্রবার, জুন ১৪, ২০২৪
রাজবাড়ীতে করোনার বিস্তার রোধকল্পে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পবিত্র ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায়ে ডিসি’র আহবান
  • স্টাফ রিপোর্টার
  • ২০২০-০৫-২৪ ১৪:৫০:৪৫

করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধকল্পে রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম স্বাস্থ্যবিধি ও ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা মেনে ঈদের জামাত ঈদগাহ বা খোলা জায়গার পরিবর্তে নিকটস্থ মসজিদে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে নামাজ আদায় করার জন্য জেলাবাসীর প্রতি আহবান জানিয়েছেন।
  গত ২৩শে মে সংশ্লিষ্টদের নিকট প্রেরিত উপ-আনুষ্ঠানিকপত্রে(ডি.ও পত্রে) রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম বলেন, প্রিয় পদ¥াকন্যা রাজবাড়ীবাসী, আমার সালাম ও শুভেচ্ছা নিবেন। আপনি জেনে আশ্বস্ত হবেন যে, করোনা ভাইরাসজনিত রোগ ঈঙঠওউ-১৯ এর বিস্তার রোধকল্পে এবং পরিস্থিতির উন্নয়নের লক্ষ্যে রাজবাড়ী জেলা প্রশাসন স্বাস্থ্য বিভাগ, জেলা পুলিশ, সেনাবাহিনীসহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী ও সংশ্লিষ্ট সকল সরকারী/বেসরকারী বিভাগের সাথে সুষম সমন্বয়ের মাধ্যমে সার্বক্ষণিকভাবে কাজ করে যাচ্ছে।
  ২। আগামীকাল ১লা শাওয়াল ১৪৪১ হিজরি মোতাবেক ২৫ মে ২০২০ তারিখ পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর উদযাপিত হবে। পবিত্র রমজানে মাসব্যাপী সিয়াম সাধনা ও সংযম পালনের পর অপার খুশি আর আনন্দের বারতা নিয়ে সমাগত হয় শাওয়ালের নতুন চাঁদ, পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর। ঈদ মুসলমানদের জন্য এক আনন্দঘন দিন। এ আনন্দ ছড়িয়ে পড়ে সবার মাঝে, সারা বাংলায়। ঈদ শান্তি, সহমর্মিতা ও ভ্রাতৃত্ববোধের অনুপম শিক্ষা দেয়। এ দিনে হিংসা ও হানাহানি ভুলে মানুষ সাম্য, মৈত্রী ও সম্প্রীতির বন্ধনে আবদ্ধ হয়।  
  ৩। কিন্তু এবার প্রাণঘাতী করোনাকালে ভিন্নভাবে ঈদ উদযাপন করবো আমরা। মুসলিম সমাজে প্রতি বছরই ঘরে ঘরে রোজা-ইফতার, চাঁদরাত, ঈদের জামাত ও ঈদ উৎসব পালনের মধ্য দিয়ে দিনটি সুদীর্ঘকাল ধরে পালিত হয়ে আসলেও আজ সারা বিশ্ব করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় এবার ঈদ উদযাপন হবে একান্তই ঘরোয়া পরিবেশে। এটি আমাদের আবহমান ঈদ ঐতিহ্যের বিপরীত হলেও প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে আমাদের সজাগ থাকতে হবে। 
  ৪। করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবজনিত কারণে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ হতে উন্মুক্ত স্থানে বড় পরিসরে ঈদের জামাত পরিহারের নির্দেশনা থাকায় ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় হতে মুসুল্লীদের জীবন ঝুঁকি বিবেচনা করে স¦াস্থ্যবিধি মেনে এ বছর ঈদগাহ বা খোলা জায়গার পরিবর্তে ঈদের জামায়াত নিকটস্থ মসজিদে আদায় করার জন্য নির্দেশনা জারি করা হয়েছে। উক্ত নির্দেশনার আলোকে-
(ক) প্রয়োজনে একই মসজিদে একাধিক জামায়াতের ব্যবস্থা করা যেতে পারে।
(খ) ঈদের নামাজের সময় মসজিদে কার্পেট বিছানো যাবে না। নামাজের পূর্বে সম্পূর্ণ মসজিদে জীবানুনাশক দ্বারা পরিস্কার করতে হবে। মুসুল্লীগণ প্রত্যেকে নিজ নিজ দায়িত্বে জায়নামাজ নিয়ে যাবেন।
(গ) করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধকল্পে মসজিদের ওযুর স্থানে সাবান/হ্যান্ড স্যানিটাইজার রাখতে হবে।
(ঘ) মসজিদের প্রবেশ দ্বারে হ্যান্ড স্যানিটাইজার/হাত ধোয়ার ব্যবস্থাসহ সাবান-পানি রাখতে হবে।
(ঙ) মুসুল্লীগণকে নিজ নিজ বাসা থেকে ওযু করে মসজিদে যেতে হবে এবং ওযু করার সময় কমপক্ষে ২০ সেকেন্ড সাবান দিয়ে হাত ধুয়ে নিতে হবে।
(চ) ঈদের নামাজে অংশগ্রহণের জন্য মুসুল্লীগণকে অবশ্যই মাস্ক পরে মসজিদে আসতে হবে। মসজিদের সংরক্ষিত জায়নামাজ ও টুপি ব্যবহার করা যাবে না।
(ছ) মসজিদসমূহে অনুষ্ঠিত ঈদের নামাজের কাতারে দাড়ানোর ক্ষেত্রে সামাজিক দূরত্ব ও স¦াস্থ্যবিধি অনুসরণ করতে হবে। 
(জ) এক কাতার অন্তর অন্তর কাতার করতে হবে।
(ঝ) শিশু, বয়োবৃদ্ধ, যে কোন অসুস্থ ব্যক্তি এবং অসুস্থদের সেবায় নিয়োজিত ব্যক্তি মসজিদসমূহে অনুষ্ঠিত ঈদের নামাজে অংশগ্রহণ করতে পারবেন না।
(ঞ) করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধ নিশ্চিতকল্পে মসজিদের ঈদের নামাজ শেষে কোলাকুলি এবং পরস্পর হাত মেলানো যাবে না।
(ট) করোনা ভাইরাস মহামারি থেকে পরিত্রাণ পাওয়ার জন্য মহান আল্লাহর নিকট দোয়া করতে হবে।
(ঠ) খতিব, পেশ ইমাম এবং মসজিদ পরিচালনা কমিটির সদস্যগণ বিষয়গুলো বাস্তবায়ন করবেন।
  ৫। এবারের ঈদ উৎসব হোক পরিবারের সবার সুস্থতা, বাড়িতে থেকে নতুনভাবে ঈদ আবিষ্কার। করোনাকালে স¦াস্থ্য বিধি মেনে ঈদ উদ্যাপনের প্রত্যাশায় রাজবাড়ী জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সবাইকে জানাই ঈদের শুভেচ্ছা। -ঈদ মোবারক।

আন্তরিকভাবে পদ্মা কন্যা রাজবাড়ীবাসীর
(দিলসাদ বেগম)
জেলা প্রশাসক
রাজবাড়ী।

 মহান মে দিবস উপলক্ষ্যে জেলা প্রশাসকের বাণী
বাংলা নববর্ষ ১৪৩১ উপলক্ষ্যে জেলা প্রশাসকের শুভেচ্ছা বাণী
পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষ্যে জেলা প্রশাসকের শুভেচ্ছা বাণী
সর্বশেষ সংবাদ