ঢাকা মঙ্গলবার, মে ১৮, ২০২১
আবার আসিল করোনা মহামারী
  • ডাঃ সুনীল কুমার বিশ্বাস
  • ২০২১-০৪-১১ ০০:৩৮:২৯

করোনা কোভিড নাইনটিন অনেকটা হয়ে আসছিল প্রশমিত, আবার আসিল কাল বৈশাখী ঝড়ের মতো চারিদিক করিয়া প্রকম্পিত। ইতিমধ্যে লক্ষ লক্ষ পরিবার প্রিয়জনদের হারিয়ে হয়ে গেছে নিঃস্ব, এর কি কোন প্রতিকার নেই প্রমাদ গুনিছে বিশ্ব।

  গত একটি বছর কত পিতামাতা হারালেন তার প্রিয়তম সন্তান শুন্য করি তাদের বুক, কোথায় রাখিবেন এত বুকভাঙ্গা বেদনা ও দুঃখ। কত ভাইবোন অকালে চলে গেল কত সংসার করিয়া খালি, কত বোনের সিঁথির সিঁদুর মুছে গেল, কত বোনের হাতের মেহেদীর রং না শুকাতেই হলো অকাল বৈধব্যের বলি। কত জনপদ হইলো শ্মশান নিষ্ঠুর করোনার মহামারীতে, এখনো আকাশ বাতাস হয়ে আছে ভারী তাদের কান্না আর আহাজারিতে। এখনো কত নববধূ অকাল বৈধব্যের যন্ত্রণায় ফেলছে চোখের জল, করোনা তুমি এত নিষ্ঠুর কেন এবার থামাও তোমার বিজয় রথ,বন্ধ করো তোমার কুট কৌশল।

  এর আগেও মহামারী এসেছে স্প্যানিশ ফ্লু প্যানডেমিক নামে(১৯১৮-১৯২০), স্প্যানিশ ফ্লু ৫০০ মিলিয়ন মানব সন্তানকে গ্রাস করিল অবলীলায় ধরাধামে। আরো এসেছিল সোয়াইন ফ্লু প্যানডেমিক হয়ে(২০০৯-২০১০) ভয়ংকর এই ভাইরাস, অগনিত মানুষের জীবন প্রদীপ নিভে গিয়েছিল, কত পরিবারের করিয়া সর্বনাশ। পৃথিবীর প্রায় সবদেশেই একযোগে আঘাত হানিল বিপুল আয়োজনে, মানবকূল ভয়ে আতঙ্কে কাঁপে থরথর কি উপায় আছে বাঁচিবার এক্ষনে।

করোনার প্রথম ঢেউ মোটামুটি হয়েছিল স্থিতিমিত, যদিও লক্ষ লক্ষ লোকের জীবন প্রদীপ হয়েছিল নির্বাপিত। খবরে জানা যায় এক বাংলাদেশেই করোনা রূপ পাল্টিয়েছে অন্তত সাড়ে চার হাজার বার। এবার করোনা আসিল অধিক ক্ষিপ্রতায় সংক্রমণের ক্ষমতা আরো ভয়ংকর। সংক্রমণের হার কমে আসছিল বেশ-আমরা ভেবে নিলাম বিদায় নিয়েছে করোনা আপদ, আমরা ছেড়ে দিলাম মাস্ক পড়া, থাকলো না নিরাপদ দূরত্বের বালাই, ছেড়ে দিলাম হাত ধোয়াধুয়ি আর তাতেই বাড়লো বিপদ। টিভির খবর, পত্র পত্রিকায়, মোবাইল ফোন বাজিবার সময় করোনার বিরুদ্ধে প্রতিটি সতর্ক বাণী করেছে উচ্চারণ, আমরা কি কোন গরজ দেখায়েছি, তার একটি নিয়ম ও কি ঠিকমত করেছি পালন?

  তাই করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আসার প্রেক্ষাপট তো আমরাই বানিয়েছি করোনা কে করিয়া অবজ্ঞা, হে মানব জাতি তোমরাই তো বড়াই করো আমরা সৃষ্টির সেরা জীব-কোথায় গেল তোমার প্রজ্ঞা? যেখানে সেখানে হাঁচি দিছি, কাশছি যত্রতত্র, করছি বড়ো বড়ো সভা সমাবেশ, মানুষের মাঝে না ঢাকিয়া নাক মুখ চোখ, আর এভাবেই করোনার আসিবার পথ প্রসস্থ করিলাম হইয়া দূর্মুখ। 

  বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা তো আগেই সতর্ক করেছিল আরো কয়েক বছর থাকতে পারে করোনা সংক্রমণ, যতদিন সম্পূর্ণ না যাবে ততদিনই সাবধানে থাকার রয়েছে প্রয়োজন। 

  আমরা জানি এর আগেও মহামারী হয়ে এসেছিল প্লেগ, গুঁটি বসন্ত, কলেরা, ম্যালেরিয়াসহ কত অনুজীব কত মানুষ করিল বধ, সব কিছুর কথা বলতে গেলে হয়ে যাবে এক মহাভারত। এখন শুধু করোনা কোভিড নিয়েই লিখবো এ রোগ গাথা, আমরা যদি করোনার স্বাস্থ্যবিধির সবগুলো নিয়ম মেনে চলতাম লিখতে হতো না এত কথা।

  ইতিমধ্যে কয়েক প্রকার করোনার ভ্যাকসিন হয়েছে আবিষ্কার, এখনো সময় আসেনি বলিবার সে সকল ভ্যাকসিন কতটা কার্যকর। করোনার ভ্যাকসিন এসেছে যদিও মানুষ পাইনা পুরাপুরি স্বস্তি, আশা নিরাশার দ্বন্দ্বে দোল খাই মানুষ, পাইনা মনে তৃপ্তি। 

  একদিন করোনা চলে যাবে নিশ্চয় আশা রাখুন বুকে আর থাকুন সাবধান, আশা ও বিশ্বাস না থাকলে মনে বলুন কি নিয়ে বেঁচে থাকবেন?

  আসুন আমরা আবার নব উদ্যোগে শুরু করি করোনা সংক্রান্ত নিয়মকানুন মানতে, মুক্তিযুদ্ধের বিজয়ী জাতি মোরা কোন ছার করোনার কাছে পরাভব মানিব না কোন মতে।

  ভ্যাকসিনের একটা ডোজ অনেকেই নিয়ে থাকবেন- দ্বিতীয় ডোজ নেবার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে আবার, এখনো অনেক লোকই ভ্যাকসিনের ব্যাপারে রয়েছেন উদাসীন ও নির্বিকার। 

  এদিকে করোনা সংক্রমণ বেড়েই চলেছে- মৃত্যুর সংখ্যাও বেড়ে চলেছে লাফিয়ে লাফিয়ে, এখন আমরা বাঁচি কি মরি রয়েছি চিন্তায় আর ভয়ে ভয়ে।

  অনেক জ্ঞানী গুণী জন যাঁরা ছিলেন জাতির বিবেক তাঁরা দেশকে মেধা শূন্য করে হারিয়ে গেলেন, আশার আলো ক্রমশ্য ফিকে হয়ে আসছে কি হবে উপায় এখন?

  তাই ভাই বোন বন্ধু-স্বজন সবাইকে জানাই আকুল আহ্বান, অতিদ্রুত আসুন আমরা গ্রহণ করি করোনার ভ্যাকসিন, আর মেনে চলি করোনা সুরক্ষার নিয়ম কানুন।

  করোনার প্রথম ঢেউয়ের প্রাক্কালে করোনার স্বাস্থ্য বিধি মেনে সুফল তো এসেছিল রয়েছে তার প্রমাণ, করোনার বিরুদ্ধে কার্যকর সব কিছু করি, যা করলে ঠেকিয়ে রাখা যাবে করোনা সংক্রমণ। 

  করোনা সংক্রমণ চিকিৎসার ওষুধ এখনো হয়নি আবিষ্কার, এখন করোনা চিকিৎসায় রোগের লক্ষন দেখে ওষুধ দেওয়া হয় রোগীর। 

  করোনাকে পুজি করে বাড়াইল তারা জিনিসপত্রের দাম, মানুষ কেন এত লোভী হয় বুঝিতে হই অক্ষম। আইন-শৃঙ্খলা মানে না কেহ বেড়ে যায় ব্যাভিচার, চোরাকারবারী, খুনখারাপী আর ধর্ষণের মতো জঘন্য ঘটনা।

  মহামারী আসিলে এ সব কিছুই বেড়ে যায় কেহ করে না পরোয়ানা। 

  আমরা বাঙ্গালিরা কতটা সভ্য জাতি কতটা হয়েছি সুশৃঙ্খল, সবাই জানেন আমরা একটি নিয়ম ও মানতে পারিনি হইনি পানচুয়াল। আসুন আমরা সবাই আবার নতুন করে ভালো হয়ে যাই, আসুন মোরা কষ্ট করে এ দুর্নাম ঘুচাই।

বিআরডিবি’র সাড়ে ৭হাজার পরিবার অভূক্ত ঃ প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা
শুকরিয়া/না-শুকরিয়া
আবার আসিল করোনা মহামারী
সর্বশেষ সংবাদ