ঢাকা রবিবার, মে ১৯, ২০২৪
করোনা মহামারী ঃ রাজবাড়ী পৌরসভার ২টি ভিআইপি ওয়ার্ডসহ ৩টি ওয়ার্ডকে ‘রেড জোন’ ঘোষণার সিদ্ধান্ত
  • স্টাফ রিপোর্টার
  • ২০২০-০৬-২৫ ১৪:২২:১৯
করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় রাজবাড়ী পৌরসভার ৩, ৪ ও ৫নং ওয়ার্ডকে ‘রেড জোন’ ঘোষণার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। খুব শীঘ্রই ৩টি ওয়ার্ডকে লকডাউন করা হবে -মাতৃকণ্ঠ।

করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় রাজবাড়ী পৌরসভার ৩, ৪ ও ৫নং ওয়ার্ডকে ‘রেড জোন’ ঘোষণার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। 
  এ ব্যাপারে অনুমতি চেয়ে রাজবাড়ীর সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ নুরুল ইসলাম গতকাল ২৫শে জুন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বরাবর একটি পত্র প্রদান করেছেন। 
  সিভিল সার্জন মোঃ নুরুল ইসলাম জানান, রাজবাড়ী পৌরসভার ৩, ৪ ও ৫ নং ওয়ার্ডে ‘রেড জোন’ ঘোষণার শর্ত পূরণ হওয়ায় গতকাল ২৫শে জুন রাজবাড়ী জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সাথে আলোচনা সাপেক্ষে উল্লেখিত ওয়ার্ডসমূহ রেড জোন ঘোষণা করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। এর প্রেক্ষিতে সংক্রামক রোগ (প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রণ ও নির্মূল) আইন, ২০১৮ এর ৩০ ধারা এবং স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশনা মোতাবেক রাজবাড়ী পৌরসভার ৩, ৪ ও ৫নং ওয়ার্ডকে রেড জোন ঘোষণা করার অনুমতি প্রদানের জন্য গতকাল বৃহস্পতিবার ই-মেইলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বরাবর একটি পত্র প্রদান করা হয়েছে। একই সাথে জোনিং সিস্টেমে করণীয় সম্পর্কে অনুমতি ও যথাযথ দিক-নির্দেশনা প্রদানের জন্যও উক্ত পত্রে অনুরোধ করা হয়েছে।
  সিভিল সার্জন মোঃ নুরুল ইসলাম আরো জানান, গত ১৪ দিনে রাজবাড়ী পৌরসভার এই ৩টি ওয়ার্ডের মধ্যে ৪নং ওয়ার্ডে ১৯জন, ৫নং ওয়ার্ডে ১৭জন ও ৩নং ওয়ার্ডে ৭জন মোট ৪৩ জন করোনা ভাইরাসে(কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়েছে। 
  তিনি বলেন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের অনুমতি পাওয়ার পর জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট গণ বিজ্ঞপ্তি জারীর মাধ্যমে উক্ত ৩টি ওয়ার্ডকে ১৪দিনের জন্য লকডাউন ঘোষণা করবেন। গণ বিজ্ঞপ্তিতে এ সংক্রান্ত বিস্তারিত উল্লেখ থাকবে। অনুমতি পাওয়ার আগামী ২/৩ দিনের মধ্যে ৩টি ওয়ার্ডকে লকডাউন করা হবে।    
  উল্লেখ্য, রাজবাড়ী পৌরসভার রেড জোনের আওতায় পড়া এই ৩টি ওয়ার্ডের মধ্যে ৪ ও ৫নং ওয়ার্ড স্থানীয়ভাবে ‘ভিআইপি ওয়ার্ড’ হিসেবে পরিচিত। এই দু’টি ওয়ার্ডের রাজবাড়ী-১ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী, সাবেক সংসদ সদস্য আলী নেওয়াজ মাহমুদ খৈয়ম, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফকীর আব্দুল জব্বার, পৌর মেয়র মহম্মদ আলী চৌধুরী, সাবেক মেয়র তোফাজ্জেল হোসেন মিয়া, রাজবাড়ী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও চেম্বার-অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজের সভাপতি কাজী ইরাদত আলী, দৈনিক মাতৃকণ্ঠ পত্রিকার সম্পাদক ও রাজবাড়ী প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক খোন্দকার আব্দুল মতিনসহ সরকারী পদস্থ কর্মকর্তা, বিচারক, চিকিৎসক, পুলিশ কর্মকর্তা, আইনজীবী, কলেজ শিক্ষকসহ অনেক গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের বসবাস। 
  এছাড়াও ৪ ও ৫নং ওয়ার্ডের মধ্যেই রয়েছে রাজবাড়ী সদর হাসপাতাল, নার্সিং ট্রেনিং ইনস্টিটিউট, সিভিল সার্জনের কার্যালয়, জেলা মৎস্য অফিস, বিএডিসি অফিস, জেলা আনসার ও ভিডিপি কার্যালয়, বিদ্যুৎ সরবরাহ কেন্দ্র, সরকারী মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র(ম্যার্টানিটি), গোয়েন্দা সংস্থার অফিস, কৃষি ব্যাংকের আঞ্চলিক কার্যালয়, ৪টি বেসরকারী ক্লিনিক, মহিলা ও শিশু বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয়, জেলা পরিসংখ্যান অফিস, রাজবাড়ী টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ, ডাঃ আবুল হোসেন কলেজ, ৩টি হাইস্কুল ও শ্রীপুর কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালসহ গুরুত্বপূর্ণ অনেকগুলো সরকারী ও বেসরকারী অফিস রয়েছে। 

 

করোনা সংক্রমণের উচ্চ ঝুঁকিতে রাজবাড়ী॥মার্চেই আক্রান্ত বেশী॥স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষিত
করোনার কমিউনিটি ট্রান্সমিশনে রাজবাড়ী জেলায় সংক্রমণ ব্যাপক ছড়িয়ে পড়ছে॥আক্রান্ত ৪৫৭ জন
করোনা মহামারী ঃ রাজবাড়ী পৌরসভার ২টি ভিআইপি  ওয়ার্ডসহ ৩টি ওয়ার্ডকে ‘রেড জোন’ ঘোষণার সিদ্ধান্ত
সর্বশেষ সংবাদ