ঢাকা শুক্রবার, জুন ২১, ২০২৪
গোয়ালন্দে পদ্মা নদীতে চায়না দোয়ারীতে সয়লাব॥বিলুপ্তি পথে দেশীয় প্রজাতির মাছ
  • আবুল হোসেন
  • ২০২৩-১১-১৯ ১৮:২০:৪৭

রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দে পদ্মা নদীতে ব্যাপকভাবে ছেয়ে গেছে কারেন্ট জাল ও চায়না দোয়ারী। পদ্মা নদী ও নদীর শাখা খাল বিল ও জলাশয় মধ্যে রয়েছে নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল ও চায়না দুয়ারী  দিয়ে মাছ শিকারের প্রতিযোগিতার শুরু হয়েছে। ফলে ধ্বংস হচ্ছে বিভিন্ন দেশীয় প্রজাতির মাছ ও জলজ প্রাণী। 

 জানা গেছে, পদ্মা নদী সহ খাল বিলে চায়না দোয়ারী ও নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল দিয়ে জাটকা ইলিশ, পোনা মাছ ও ডিমওয়ালা মা মাছ শিকার করা হচ্ছে। এছাড়া সকল প্রকার দেশীয় প্রজাতির মাছ, পোকামাকড়, ব্যাঙ, সাপ, কুচিয়া মারা পড়ছে এই সব মরণ ফাঁদে। সেই সাথে রক্ষা পাচ্ছে না বিপন্ন জলজ প্রাণী শুশুকও। এ কারণে নদীতে বিলুপ্তর পথে বিভিন্ন দেশীয় প্রজাতির মাছ ও  জলজপ্রাণী।

 সচেতন মহলের দাবী, পদ্মা নদীতে অবাধে নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল ও চায়না দুয়ারী দিয়ে মাছ শিকার করা বন্ধ না করলে আগামীতে নদী থেকে বিপন্ন প্রজাতির মাছ ও দেশি মাছগুলো ধ্বংস হয়ে যাবে। যা আগামী প্রজন্মের কাছে শুধু ছবিতে ও গল্পেই শোভা পাবে।

 একাধিক জেলেরা বলেন, স্থানীয় কিছু অসাধু জেলেদের কারণে দিন দিন হারিয়ে যাচ্ছে দেশীয় প্রজাতির মাছ সহ জলজ প্রাণীগুলো। নিষিদ্ধ কারেন্ট জালে আটকা পড়ে জাটকা ইলিশ, ডিমওয়ালা মা মাছ। যার কারণে ডিম ছাড়তে না পারায় ইলিশ সহ দেশি প্রজাতির মাছ আর দেশে দেখতে পাবো না। এসব অবৈধ মাছ শিকার করার মরণ ফাঁদ গুলো অতি দ্রুত নদীতে ও হাট বাজারে অভিযান চালিয়ে ধ্বংস করা প্রয়োজন।

 মাছ বিক্রেতা মোঃ হাসান মোল্লা বলেন, নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল ও চায়না দুয়ারী দিয়ে কিছু অসাধু জেলেরা নদী ও খাল-বিল থেকে অবাধে দেশীয় প্রজারি মাছ ধরে বিক্রি করছেন। আগামীতে এ মাছ ধরা বন্ধ করা হলে, এ দেশে মাছের উৎপাদন বৃদ্ধি ও বিলুপ্ত প্রায় বিভিন্ন প্রজাতির মাছ পাওয়া যেতে। 

 দৌলতদিয়া ঘাট নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ জে.এম সিরাজুল কবির, পদ্মা নদীতে অসাধু মাছ জেলেরা নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল ও চায়না দুয়ারী দিয়ে অবৈধ ভাবে বারো মাসই থেকে মাছ শিকার করার চেষ্টা করে। কারেন্ট জাল ও চায়না দুয়ারি মাছ নিধনে দেশের বড় শত্রু। নৌ-পুলিশ নিয়মিত ভাবেই পদ্মা নদীতে অভিযান পরিচালনা সহ জাল উদ্ধার ও তা ধ্বংস করে আসছে। আগামীতেও এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।

 গোয়ালন্দ উপজেলা মৎস্য অফিসার(অতিরিক্ত দায়িত্ব) মোস্তফা আল রাজীব বলেন, নিত্য নতুন প্রযুক্তির মাধ্যমে অল্প পরিশ্রমে বেশি মাছ অপহরণে চায়না দুয়ারী এখন সারা দেশে আলোচিত বিষয়। মৎস অফিস মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে অভিযান পরিচালনা করে আসছে। কারেন্ট জাল ও চায়না দুয়ারী ব্যবহার যাতে না করে জেলেদের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে।  

দাদশীতে বিএনপি নেতা আকবর খানের ওপর হামলার প্রতিবাদে পরিবারের সংবাদ সম্মেলন
দাদশী ইউপির চেয়ারম্যান দেলোয়ারকে কুপিয়ে জখমের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ পালন
পাংশার পিড়ালী পাড়ায় দুর্বৃত্ত দলের হানা॥২জন আহত
সর্বশেষ সংবাদ