ঢাকা বৃহস্পতিবার, আগস্ট ১১, ২০২২
গোয়ালন্দের ‘রাজা বাবু’ মাতাবে কোরবানীর হাট
  • আবুল হোসেন
  • ২০২২-০৭-০২ ০২:৩৯:০০
আসন্ন পবিত্র ঈদ-উল আযহাকে সামনে রেখে গোয়ালন্দ উপজেলার মৃধাডাঙ্গা গ্রামের খামারী ফজলু মন্ডলের খামারে ৫ ফুট উচ্চতার ও ১০ ফুট দৈর্ঘ্যরে সাদা-কালো রঙের এই ফ্রিজিয়ান জাতের ষাঁড় গরুটি খুব শীঘ্রই কোরবানীর হাটে উঠবে -মাতৃকণ্ঠ।

আসন্ন পবিত্র ঈদ-উল আযহাকে সামনে রেখে কোরবানীর হাটে তোলার জন্য সাড়ে ৫ ফুট উচ্চতার ও ১০ ফুট দৈর্ঘ্যরে সাদা-কালো রঙের ফ্রিজিয়ান জাতের ষাঁড় গরুটিতে প্রস্তুত করে তুলছে রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দ উপজেলার উজানচর ইউনিয়নের মৃধাডাঙ্গা গ্রামের খামারী ফজলু মন্ডল। 
  তার দাবী বিশালাকৃতির এই গরুটির ওজন ৩৫ মণ। ভালোবেসে এর নাম রেখেছেন ‘রাজা বাবু’। 
  তিনি জানান, ২০১৮ সালের মাঝামাঝিতে তিনি রাজবাড়ী জেলার বালিয়াকান্দি উপজেলার সোনাপুর হাট থেকে গরুটি কেনেন। প্রাণি সম্পদ দপ্তরের পরামর্শ অনুযায়ী মোটাতাজা করার জন্য ক্ষতিকর হরমোন ওষুধ ছাড়াই সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক খাবার গম, ভুষি, ভাত, ছোলা, চিড়া, খৈল, খড়, ঘাস-এসব খাইয়ে গরুটিকে লালন-পালন করেছেন। আকর্ষণীয় নাম আর আকারে বড় হওয়ায় প্রতিদিন অনেক মানুষ গরুটিকে দেখতে আসছে। তিনি গরুটির দাম চাচ্ছেন ১২ লক্ষ টাকা। গরুটির পিছনে খাবার ও পরিচর্যা বাবদ যে ব্যয় হয়েছে তাতে এ দাম না পেলে তার লাভ হবে না। 
  গরুটির রাখাল জিন্নাত আলী বলেন, গরুটি খুবই শান্ত প্রকৃতির। শুরু থেকেই তিনি গরুটির দেখাশোনা করছেন। মালিক গরুটির ভালো দাম পেলে তারও ভালো লাগবে। 
  গরুটিকে দেখতে আসা জহুরুল ইসলাম বলেন, আমার বাড়ী পাশের গ্রামেই। লোকমুখে গরুটির কথা শুনে স্বচোক্ষে দেখতে এসেছি। দেখে খুবই ভালো লাগলো। 
  গোয়ালন্দ উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ পার্বতী পাল বলেন, ঈদ-উল আযহা উপলক্ষ্যে এ বছর উপজেলায় ৩ হাজার ৪৪১টি পশু কোরবানীর জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে। এর মধ্যে ২ হাজার ২৩টি গরু, ১ হাজার ৩২৫টি ছাগল ও ৯৩টি ভেড়া। গরুগুলোর মধ্যে উজানচরের খামারী ফজলু মন্ডলের গরুটিই সবচেয়ে বড়। তাকে আমরা বিভিন্ন ধরনের সহযোগিতা ও পরামশ প্রদান করে আসছি। আশা করি তিনি গরুটি ভালো দামে বিক্রি করে লাভবান হবেন।

পাংশা মডেল থানায় আইন-শৃঙ্খলা বিষয়ক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত
পাংশা পৌরসভা পরিদর্শনে ডিডিএলজি
বালিয়াকান্দিতে পেঁপে গাছের সাথে গলায় ফাঁস নিয়ে যুবকের আত্মহত্যা
সর্বশেষ সংবাদ